রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
বঙ্গবন্ধুর স্নেহধন্য আব্দুল জব্বারের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বাণী প্রদান করেছেন রাষ্ট্রপতি

বঙ্গবন্ধুর স্নেহধন্য আব্দুল জব্বারের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বাণী প্রদান করেছেন রাষ্ট্রপতি

নিউজ ডেস্ক ◾ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহধন্য, প্রাক্তন সভাপতি বাংলাদেশ কৃষক লীগ, প্রাক্তন জাতীয় সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জব্বারের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ বাণী প্রদান করেছেন।

১০ ভাদ্র ১৪২৯,২৮ আগস্ট ২০২২ইং তারিখে রাষ্ট্রপতি তার প্রদত্ত বাণীতে বলেন –
“জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল জব্বারের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আমি তাঁর স্মৃতির প্রতি জানাই গভীর শ্রদ্ধা।

সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে যাঁরা আজীবন বাংলার গণমানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করেছন, প্রয়াত নেতা আব্দুল জব্বার তাঁদের অন্যতম। মরহুম আব্দুল জব্বার ছিলেন একজন অভিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ান ও অনন্য ব্যক্তিত্বের অধিকারী। ১৯৬২-এর শিক্ষা আন্দোলন, ১৯৬৬-এর ছয় দফা, ১৯৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০-এর নির্বাচন, ১৯৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধ, ১৯৯০-এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন তিনি গুরুত্বপূর্ন অবদান রেখেছেন। তিনি বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি ছিলেন। এছাড়া বঙ্গবন্ধু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি, ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটি ও রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি। মহান মুক্তিযুদ্ধে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০২০ সালে তাকে মরণোত্তর একুশে পদকে ভূষিত করা হয়।

১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট কালরাতে স্বাধীনতাবিরোধী ঘাতকচক্র জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে। নির্মম এ হত্যাকান্ডের পর আব্দুল জব্বার ১৭ই আগস্ট কুলাউড়া শহরে প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও গায়েবানা জানাজা আয়োজন করেন। এ জন্য তাকে বেশ কয়েকবার কারাবরণ ও অমানুষিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছিল।

জাতির পিতা আব্দুল জব্বারকে স্নেহ করতেন এবং ভালোবাসতেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে রাজনীতি ও মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেছিলেন। তিনি অন্যায়-অবিচার, নির্যাতন-নিপীড়নের বিরুদ্ধে জীবন বাজি রেখে প্রতিবাদ ও স্বোচ্চার থেকেছেন সবসময়। তাঁর কর্মময় জীবন ও তরুণ প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উৎসাহিত করবে। আমি মহান আল্লাহর দরবারে মরহুম আব্দুল জব্বারের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি।
জয় বাংলা, বাংলাদেশ চিরজীবি হউক।”

উল্লেখ্য, গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রটোকল অফিসার আবু জাফর রাজু’র আব্বা ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জব্বার।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।