শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
১০ ফেব্রুয়ারিত আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা,ডাক পেয়েছে তৃণমূল সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের আজীবন দাতা সদস্য হলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আব্দুল হাই(মায়া) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম নাহিদ ওসি তাজুল ইসলাম কানাইঘাট থেকে বিদায়,বিয়ানীবাজারে যোগাযোগ গোলাপগঞ্জে সিএনজি অটোরিকশা ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ,আহত ৩ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করবেন আজ বিয়ানীবাজারে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন সিলেটে সাংস্কৃতিক উৎসবে শিল্পীদের পরিবেশনায় মুগ্ধ দর্শক সিলেট ঢাকা মহাসড়কে একই পরিবারের ৪ জন সহ ৫ জন নিহত গোলাপগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
৭ বছরের মেয়ে তুলল ৮০ কেজি ওজন

৭ বছরের মেয়ে তুলল ৮০ কেজি ওজন

দর্পণ ডেস্ক : বয়স তার মাত্র ৭ বছর। এখন তো তার খেলার বয়স। কিন্তু এত কম বয়সেই এই মেয়ে যেন পেশাদার হয়ে উঠেছে। ৭ বছরের রোরি বেন উলফ অলিম্পিকের উইমেন্স বারের স্নেচে ৩২ কেজি, ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ৪২ কেজি, সোয়াটিংয়ে ৬১ কেজি ও ডেডলিফ্টে ৮০ কেজি ওজন তুলে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। কানাডার এই মেয়ে এখন সোশ্যাল মিডিয়া সেনসেশন।

রোরি এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছে দুই বছর অনুশীলনের পর। মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকে রোরি ভারোত্তলন শুরু করেছিল। তার বয়সী বাচ্চারা যখন খেলে দিন কাটায়, তখন সে রীতিমতো নিজেকে শক্তিশালী করার করসত শুরু করে দিয়েছিল।

বলাবাহুল্য, রোরি এখন বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী বাচ্চা মেয়ে। অনন্য রেকর্ড সে নিজের নামে করে নিয়েছে। রোরি বলেছে, নিজেকে ফিট দেখতে তার ভালো লাগে। একই সঙ্গে সে নিজের সারা শরীরে ট্যাটু আঁকার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে।

রোরি বলেছে, ‘খাওয়াদাওয়া আর অনুশীলনে আমার সবচেয়ে বেশি ফোকাস ছিল। সেই সঙ্গে নিজেকে শক্তিশালী করে তোলার ইচ্ছাও ছিল। ওজন তুলতে আমার ভালো লাগে। আত্মবিশ্বাসী মনে হয়। নিজেকে ঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারলে অনেক রেকর্ড করা যায়।’

তার ভারোত্তলনের ভিডিওর নিচে একজন লিখেছিলেন, ‘তোমার বাঁ হাতের ট্যাটু-টা দারুণ।’ জবাবে রোরি বলেছে, ‘ওটা অস্থায়ী। তবে আমি একদিন সারা শরীরে ট্যাটু করাব। ট্যাটু দেখাতে আমার খুব ভালো লাগে।’

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।