সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বড়লেখা থেকে ১৮৫০ পিস ইয়াবা সহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাদ্রাসা ও এতিমখানার নামে ভুয়া রশিদ তৈরি করে চাঁদা আদায়;আটক ১১ প্রতারক ইফতারি ও ঈদের কাপড়ের জেরে ওসমানী নগরে অন্তঃসত্ত্বা নববধূ হত্যা;আটক -২ সুনামগঞ্জে ২৫০ টাকার জন্য বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন গ্রামপুলিশ রউফ হত্যা মামলার ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাধবপুরে ২২৪৮ পিস ইয়াবা সহ র‍্যাবের হাতে আটক সুজন জকিগঞ্জ থেকে আরো একজন হেফাজত নেতা গ্রেফতার অনন্য নেত্রী শেখ হাসিনা -সিলভিয়া পারভিন লেনি ৪৬০ পিস ইয়াবা সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব-৯ যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরছেন সাবেক ছাত্রনেতা মস্তাক আহমেদ
বাহুবলে ওয়াজ থেকে ফেরার পথে কুপিয়ে হত্যা

বাহুবলে ওয়াজ থেকে ফেরার পথে কুপিয়ে হত্যা

বাহুবল প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের বাহুবলে ওয়াজ শুনে বাড়ি ফেরার পথে আলমগীর মিয়া (১৭) নামের এক কিশোরকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের বাংলাবাজার নামকস্থানে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত আলমগীর পুটিজুরী ইউনিয়নের আহমদপুর গ্রামের আফতাই মিয়ার ছেলে। তিনি পরিবারের একমাত্র উপার্জন ক্ষম ব্যাক্তি ছিলেন।

জানা যায়, নবীগঞ্জ উপজেলার বড়চর গ্রামের একটি ওয়াজ শুনে বাড়ি ফেরার পথে পুটিজুরী ইউনিয়নের বাংলাবাজার নামক স্থানে পৌঁছলে মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিক্সা নিয়ে আসা দুর্বৃত্তরা তাকে মাথায় কুপ দিলে সে মাঠিতে লুঠিয়ে পড়ে।

তাৎক্ষনিক তার সাথে থাকা বন্ধু মুন্না সহ স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাহুবল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

তার সাথে থাকা উপজেলার যাদবপুর গ্রামের মুন্না জানায়, পৌষ মাসের ২২ তারিখে মুগকান্দি গ্রামের মজনু শাহর ওরসে সম্ভপুর গ্রামের আকাশ নামের এক ছেলের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। গতকালও তাদের সাথে বড়চর গ্রামের হাফিজুর রহমান কুয়াকাটা হুজুরের ওয়াজে টেলা ধাক্কা হয়। এরই জের ধরে আকাশ ও তার লোকজন এ ঘটনা ঘটায়।

একটি সূত্র জানায়, হাসপাতাল থেকে মুন্নাকে আটক করে পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় দুর্বৃত্তের দুই অভিভাবকে আটক করা হয়েছে।

আটকের বিষয়ে বুধবার (১৩ জানুয়ারী) সকাল ৯টায় বাহুবল মডেল থানার ওসি মো: কামরুজ্জামান ও তদন্ত ওসি আলমগীর কবীরকে কয়েকবার ফোন দিলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি