সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বড়লেখা থেকে ১৮৫০ পিস ইয়াবা সহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাদ্রাসা ও এতিমখানার নামে ভুয়া রশিদ তৈরি করে চাঁদা আদায়;আটক ১১ প্রতারক ইফতারি ও ঈদের কাপড়ের জেরে ওসমানী নগরে অন্তঃসত্ত্বা নববধূ হত্যা;আটক -২ সুনামগঞ্জে ২৫০ টাকার জন্য বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন গ্রামপুলিশ রউফ হত্যা মামলার ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাধবপুরে ২২৪৮ পিস ইয়াবা সহ র‍্যাবের হাতে আটক সুজন জকিগঞ্জ থেকে আরো একজন হেফাজত নেতা গ্রেফতার অনন্য নেত্রী শেখ হাসিনা -সিলভিয়া পারভিন লেনি ৪৬০ পিস ইয়াবা সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব-৯ যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরছেন সাবেক ছাত্রনেতা মস্তাক আহমেদ
বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্ক ধর্ষণ নয় ; ভারতের হাইকোর্ট

বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্ক ধর্ষণ নয় ; ভারতের হাইকোর্ট

দর্পণ ডেস্ক : বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্ক সবসময় ধর্ষণ নয় বলে ঐতিহাসিক রায় দিয়েছেন দিল্লির হাইকোর্ট। আদালত বলেন, একজন নারী যদি তার নিজের সম্মতিতে দীর্ঘদিন শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত রাখেন তাহলে এটাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে ধর্ষণ বলা যাবে না।

বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) একজন নারীর এমন মামলা খারিজ করে দিয়ে হাইকোর্ট এ রায় দিয়েছেন। খবর অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়ার। এই নারী তার মামলায় দাবি করেছিলেন, একজন পুরুষ তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এ প্রতিশ্রুতির কারণে তাদের মধ্যে মাসের পর মাস শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত ছিল। তিনি এটাকে ধর্ষণ বলে দাবি করেন। তবে জবাবে আদালত ওই রায় দেন।

বিচারক বিভু বখরু বলেছেন, বিয়ের কথা বলে শারীরিক সম্পর্ককে অপরাধ হিসেবে তখনই ধরা হবে ভিকটিম যদি সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে মনে করেন।

তবে কিছু ক্ষেত্রে বিয়ের প্রতিশ্রুতি হয়তো যৌন সম্পর্ক স্থাপনে উভয়কে সম্মত করাতে পারে। যদিও একই রকম মনে নাও করতে পারেন সংশ্লিষ্ট যুবক বা যুবতী।
তিনি আরও বলেন, এমন ক্ষেত্রে ওই শারীরিক সম্পর্কে উভয়ের মত আছে বলে ধরে নেওয়া হলেও, ওই যুবতীর মত ছিল না বলে মনে করা হয়। এমন ঘটনাকে ধর্ষণ হিসেবে ধরা হতে পারে। তবে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫ ধারার অধীনে এটা ধর্ষণের অপরাধ হবে।

কিন্তু যদি দুজনের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত থাকে অথবা দীর্ঘ সময় তারা এমন সম্পর্ক চালিয়ে যান তাহলে সেটাকে দেখা হয় স্বেচ্ছায় সম্পর্ক স্থাপন হিসেবে। এর ফলে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে এর আগে ট্রায়াল কোর্ট খালাস দিয়েছিলেন। হাইকোর্টও তা সমুন্নত রাখেন। অর্থাৎ ওই যুবককে ধর্ষণের অভিযোগ থেকে খালাস দেন আদালত।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি