রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বিয়ানীবাজারে নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডার সালাউদ্দিন গ্রেফতার কানাইঘাটে কারেন্টে তারে লাগে দাদা-নাতির মৃত্যু চুনারুঘাটে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ১২ বছর পর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জানুয়ারিতে জেলা পরিষদ নির্বাচন দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চুনারুঘাটে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে একই পরিবারে ৩ জনের মৃত্যু আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্ম দিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ মাদক বিরোধী অভিযানে জীবন উৎসর্গ করলেন পুলিশ কর্মকর্তা পিয়ারুল
ইউটিউব দেখতে বাধা দেওয়ায় মেয়ের আত্মহত্যা

ইউটিউব দেখতে বাধা দেওয়ায় মেয়ের আত্মহত্যা

দর্পণ ডেস্ক : চট্টগ্রামে সানজিদা আকতার মিশু নামে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে নগরীর খুলশী থানার ওয়ারলেস এলাকার নিজ বাসা থেকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহীনুজ্জামান জানান, নিহত সানজিদার বাবা মাহফুজুল আলম রংমিস্ত্রির কাজ করেন। বৃহস্পতিবার রাতে সানজিদা ও তার ছোট বোন ইউটিউবে নাটক দেখছিল। এ সময় নাটক দেখা নিয়ে তাদের ঝগড়া হয়। বিড়ম্বনা এড়াতে মাহফুজুল আলম মেয়েদের শাসন করেন। এ সময় রাগ করে সানজিদা দরজা বন্ধ করে তার রুমে শুয়ে পড়ে। শুক্রবার সকালে বারবার ডাকাডাকি করলেও মেয়ের কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে কয়েকজনকে নিয়ে দরজা ভেঙে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেন।

বাবা বলছেন, বাবার ওপর রাগ করে সানজিদা আত্মহত্যা করেছে। তবে অন্য কোনো বিষয় আছে কিনা সেই বিষয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান খুলশীর ওসি মো. শাহীনুজ্জামান।

এদিকে সানজিদা বাবা মাহফুজুল আলম জানান, দুই মেয়ের মধ্যে সানজিদা স্থানীয় ওয়ারলেস বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ত। ছোটবেলা থেকেই অত্যন্ত জেদি ছিল সে। বৃহস্পতিবার মোবাইলে ইউটিউব দেখা নিয়ে দুই বোন ঝগড়া করছিল। এ সময় তাদের থেকে মোবাইল লুকিয়ে রেখেছিলাম। এ সময় দুই বোনকে হালকা শাসনও করি। তখন রাগ করে বড় মেয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে রাখে। বিভিন্ন সময় রাগ উঠলে সানজিদা ঘরের দরজা বন্ধ করে রাখত বলে জানান মাহফুজুল আলম।

তিনি বলেন, সকালে নামাজ পড়ে এসে দরজা খোলার জন্য বারবার ডাকলেও কোনো সাড়াশব্দ পাইনি। পরে কয়েকজনকে নিয়ে দরজা ভেঙে মেয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পাই। আমার ওপর রাগ করে মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি