রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বিয়ানীবাজারে নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডার সালাউদ্দিন গ্রেফতার কানাইঘাটে কারেন্টে তারে লাগে দাদা-নাতির মৃত্যু চুনারুঘাটে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ১২ বছর পর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জানুয়ারিতে জেলা পরিষদ নির্বাচন দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চুনারুঘাটে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে একই পরিবারে ৩ জনের মৃত্যু আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্ম দিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ মাদক বিরোধী অভিযানে জীবন উৎসর্গ করলেন পুলিশ কর্মকর্তা পিয়ারুল
তাহিরপুরে ছেলের হাতে বাবা খুন ; ছেলে আটক

তাহিরপুরে ছেলের হাতে বাবা খুন ; ছেলে আটক

দর্পণ ডেস্ক : সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় ছেলের দোকানে থাকা সুপারি কাটার যন্ত্র (স্থানীয় ভাষায় লোহার যাতি/সরতা) দিয়ে কুপিয়ে নিজ বাবাকে খুন করেছে ছেলে। এ ঘটনায় ঘাতক ছেলে নাজমুল হাসান(২০) কে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১ টার সময় উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট বাজারের হাজী রজব আলী মার্কেটে। নিহত পিতার নাম ইসলাম উদ্দিন (৪৮) ওরোপে পাগলা ইসলাম উদ্দিন, সে উপজেলার ৫ নং বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে। সে বাদাঘাট বাজারের একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী।

তাহিরপুর থানা পুলিশ ও পত্যক্ষদীর্শ সূত্রে জানাগেছে, পিতা ইসলাম উদ্দিন রাত সাড়ে ১১ টার সময় বাদাঘাট বাজারের হাজী রজব আলী মার্কেটে ছেলে নাজমুলের কসমেটিক্স এর দোকানের সামনে গেলে টাকা নিয়ে এসময় পিতা-পুত্রের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ছেলে নাজমুল পিতার পাগলামি আচরণে ক্ষিপ্ত হয়ে দোকানে থাকা সুপারি কাটার লোহার সরতা নিয়ে বাবার মাথায় একের পর এক আঘাত করতে থাকে।

এ সময় রক্তাক্ত অবস্থায় গুরতর আহত হয়ে পিতা ইসলাম উদ্দিন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ দৃশ্য স্থানীয় প্রতিবেশী দোকানদার ও রাতে বাজার পাহারাদার দেখতে পয়ে ডাক চিৎকার শুরু করলে ঘাতক নাজমুল পিতা ইসলাম উদ্দিনকে রেখে পলিয়ে যায়। পরে তারা গুরুতর আহত ইসলাম উদ্দিনকে উদ্ধার করে বাদাঘাট বাজারের স্থানীয় চিকিৎসক হাফিজ উদ্দিনের চেম্বারে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার খবর পেয়ে তাহিরপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদার ও বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ মাহমুদুল হাসান সাড়ে ১২ টায় ঘটনার স্থল পরিদর্শন করে। এবং বাদাঘাট বাজারের স্থানীয় চিকিৎসক হাফিজ উদ্দিনের চেম্বার থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে পলিয়ে থাকা ঘাতক নাজমুলকে ঘাগটিয়া গ্রামের একটি মসজিদ থেকে গ্রেফতার করে। এবং (২৯ নভেম্বর) রবিবার সকালে লাশ ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তাহিরপুর মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, রাতেই অভিযান চালিয়ে পিতার ঘাতক নাজমুলকে আটক করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে আজ সকালে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ র্মগে পাঠানো হয়ে। এ নিউজ লিখা পর্যন্ত নিহতের ছোট ভাই বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি