রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৬:২৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের ছাত্র আকিব চলে গেছেন না ফেরার দেশে ঐতিহাসিক ৭ মর্চের ভাষণ নতুন প্রজন্মের প্রেরনার উৎস শহিদ আফ্রিদির মেয়েকে বিয়ে করছেন শাহিন আফ্রিদি গোপন ৮ স্ত্রী নক্সাবন্দীর , মামলা তুলে নিতে ৪র্থ স্ত্রীকে হুমকি শাবি ছাত্রীর গোসলের দৃশ্য ধারণের অভিযোগ সোমবার থেকে ব্রিটিশ নাগরিকদের ভ্রমণের জন্য নতুন আইন : অমান্য করলে ৬,৪০০ পাউন্ড জরিমানা সিলেটে ইনজেকশন পুশ করে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী আটক একদিনে কেজিতে পেঁয়াজের দাম বাড়ল ১০ টাকা সিলেটে ঐতিহাসিক ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা এই প্রথম ৭ মার্চ পালন : স্বাধীনতায় ভূমিকা রাখা সব জাতীয় নেতাকে প্রাপ্য সম্মান দিতে চায় বিএনপি
আকবরকে ধরার জন্য ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন রহিম

আকবরকে ধরার জন্য ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন রহিম

দর্পণ ডেস্ক : সিলেটে আলোচিত রায়হান হত্যার প্রধান অভিযুক্ত আসামি এসআই (বরখাস্ত) আকবরকে ধরিয়ে দিতে সহায়তা করেন সিলেটের কানাইঘাটের সাহসী ব্যক্তি রহিম উদ্দিন। আর আকবরকে ধরার জন্য রহিম পাচ্ছেন ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার।

গোলাপগঞ্জের শরীফগঞ্জ ইউনিয়নের কানাডা প্রবাসী মো. জয়নাল আবেদীন জামিল রহিম উদ্দিনকে এ পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দেন।

সোমবার মধ্যরাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক পেজে লাইভে এসে এ ঘোষণা দেন মো. জয়নাল আবেদীন। ফলে রহিম উদ্দিন পাচ্ছেন ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার।

মো. জয়নাল আবেদীন বিশ্ব প্রবাসী শরীফগঞ্জ উন্নয়ন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক।

সিলেটের আলোচিত রায়হান হত্যার প্রধান অভিযুক্ত সাময়িক বরখাস্তকৃত এসআই আকবর হোসেনকে কানাইঘাটের ডনা সীমান্ত এলাকা থেকে আকবরকে আটক করে স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। সিলেট নগরীর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে আখালিয়া এলাকার রায়হান আহমদের মৃত্যুর এক মাসের মাথায় গ্রেফতার করা হল মূল অভিযুক্ত ওই ফাঁড়ির সাবেক ইনচার্জ আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ অক্টোবর ভোরে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ (৩৪)। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। রায়হান সিলেট নগরীর আখালিয়ার নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি নগরীর রিকাবিবাজার স্টেডিয়াম মার্কেটে এক চিকিৎসকের চেম্বারে কাজ করতেন।

এ ঘটনায় ১২ অক্টোবর রাতে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হেফাজতে মৃত্যু আইনে সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন রায়হানের স্ত্রী। স্ত্রীর দায়ের করা মামলাটির তদন্ত করছে পিবিআই। এদিকে ঘটনার পর পরই পালিয়ে যায় আকবর হোসেন।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি