সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বড়লেখা থেকে ১৮৫০ পিস ইয়াবা সহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাদ্রাসা ও এতিমখানার নামে ভুয়া রশিদ তৈরি করে চাঁদা আদায়;আটক ১১ প্রতারক ইফতারি ও ঈদের কাপড়ের জেরে ওসমানী নগরে অন্তঃসত্ত্বা নববধূ হত্যা;আটক -২ সুনামগঞ্জে ২৫০ টাকার জন্য বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন গ্রামপুলিশ রউফ হত্যা মামলার ২ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ মাধবপুরে ২২৪৮ পিস ইয়াবা সহ র‍্যাবের হাতে আটক সুজন জকিগঞ্জ থেকে আরো একজন হেফাজত নেতা গ্রেফতার অনন্য নেত্রী শেখ হাসিনা -সিলভিয়া পারভিন লেনি ৪৬০ পিস ইয়াবা সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব-৯ যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরছেন সাবেক ছাত্রনেতা মস্তাক আহমেদ
বিষক্রিয়ায় মৃত্যুর বিচার চায় রঙ্গলালের পরিবার

বিষক্রিয়ায় মৃত্যুর বিচার চায় রঙ্গলালের পরিবার

আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জের বদলপুর ইউনিয়নের মাটিয়াকাড়া গ্রামে বিষক্রিয়ায় মৃত্যুবরণ করেন রঙ্গলাল দাস (৩৭) নামের এক ব্যক্তি। এটি হত্যা না কি আত্মহত্যা এ নিয়ে এলাকায় চলছে নানা ধরণের গুঞ্জন। একমাত্র উপার্জনক্ষম অভিভাবককে হারিয়ে দুই শিশুপুত্র ও শাশুড়িকে নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন মৃত রঙ্গলালের স্ত্রী। স্বামীর মৃত্যুর পর কোনোদিন নিকটাত্মীয়দের দেওয়া খাবার খেয়ে, আবার কোনোদিন উপবাস থেকে দিনাতিপাত করছে রঙ্গলালের পরিবার।
সরেজমিনে রঙ্গলালের বাড়িতে উপস্থিত হলে গণমাধ্যমকর্মীদের দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন রঙ্গলালের মা রেখা রানী দাস ও তার স্ত্রী প্রভাতি রানী দাস। একপর্যায়ে স্ত্রী প্রভাতি রানী দাস কাঁদতে কাঁদতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। জ্ঞান ফিরলে শুধু আকাশের পানে তাকিয়ে থাকেন। কথা বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছেন তিনি। অভিভাবকহীন হওয়া হতদরিদ্র ওই পরিবারের পাশে দাঁড়ানোরও কেউ নেই। এ ব্যাপারে ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নির্বিকার।
মৃত রঙ্গলালের বোন জানান, গতবছর দীপাবলি উৎসবের রাতে একই গ্রামের বাসিন্দা কানু দাস রঙ্গলালকে তার ঘরে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে তাকে প্রাণে মারার পরিকল্পনা করেন কানু। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে চিৎকার করে কানুর ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন রঙ্গলাল এবং নিজের পরিবারের লোকজনকে বিষয়টি জানান। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য দীনদয়াল ও সাবেক ইউপি সদস্য অরুণ কুমার তালুকদারের মধ্যস্থতায় কানু রঙ্গলালের পা ধরে ক্ষমা চাওয়ার মধ্য দিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেওয়া হয়।
একই গ্রামের বাসিন্দা মৃত বীর চরণ দাসের পুত্র বিশ্ব রঞ্জন দাস বলেন, ‘ঘটনার দিন (৪ অক্টোবর) রঙ্গলালের বাড়িতে চিৎকার শুনে এসে দেখি রঙ্গলাল প্রচুর বমি করছেন। তখন আমি এবং আমার পাড়ার শনিলাল দাস এগিয়ে যাই। তখন তার মুখ থেকে মদ এবং কীটনাশক ট্যাবলেটের গন্ধ বের হচ্ছিল। এ সময় রঙ্গলাল বলেন, আপনারা শুনে রাখুন, আমি চলে যাচ্ছি। কানু, মলিন, সুশীল, পীযুষরা আমাকে মদের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়েছে।’
মৃত রঙ্গলালের মা রেখা রাণী দাস কাঁদতে কাঁদতে সংবাদকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘বাবারা, আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।’
এ বিষয়ে আজমিরীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন তরফদার বলেন, ‘এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে যদি কেউ অভিযোগ করেন, তাহলে আমরা অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা নেব।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি