সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বিয়ানীবাজারে নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডার সালাউদ্দিন গ্রেফতার কানাইঘাটে কারেন্টে তারে লাগে দাদা-নাতির মৃত্যু চুনারুঘাটে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ১২ বছর পর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জানুয়ারিতে জেলা পরিষদ নির্বাচন দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চুনারুঘাটে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে একই পরিবারে ৩ জনের মৃত্যু আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্ম দিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ মাদক বিরোধী অভিযানে জীবন উৎসর্গ করলেন পুলিশ কর্মকর্তা পিয়ারুল
আজমিরীগঞ্জে এসিল্যান্ডের নামে চাঁদা দাবি

আজমিরীগঞ্জে এসিল্যান্ডের নামে চাঁদা দাবি

আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি : আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাসের নামে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা করেছে একটি সংঘবদ্ধ চক্র। এ বিষয়ে বুধবার (১৪ আক্টোবর) আজমিরীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাস।
জানা যায়,গত ১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার আজমিরীগঞ্জ বাজারের মিষ্টি ব্যবসায়ী টুম্পা মিষ্টান্ন ভান্ডারের স্বত্বাধিকারী রিতেষ রায়ের ব্যবহৃত মুটোফোনে ০১৭১৫৭৩৩৯৩৫ নাম্বার থেকে একটি কল আসে এবং উক্ত নাম্বার ব্যবহারকারী নিজেকে আজমিরীগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাস হিসেবে নিজের পরিচয় দেয়। এসময় সে বলে- ‘কিছুক্ষণ পর আপনার (টুম্পা মিষ্টান্ন ভান্ডারে) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হবে এবং দুই লক্ষ টাকা জরিমানা করা হবে।’
তখন রিতেষ রায় বলেন- ‘স্যার আমি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী’ আমাকে এতো টাকা জরিমানা করলে আমি কিভাবে দিবো?’ উত্তরে ওই প্রতারক তখন বলে- ‘ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবো না, আপনি এই নাম্বারে ১৫ হাজার টাকা বিকাশ করেন।’
তখন রিতেষ রায় বলেন- ‘আমিতো এতো টাকা দিতে পারবো না।’ সর্বশেষ দর কষাকষিতে ৪ হাজার ধার্য করা হয়। তখন প্রতারক তাৎক্ষণিক উক্ত নাম্বারে টাকা বিকাশ করতে বললে কৌশলে বেকে বসেন রিতেশ রায়। তিনি টাকা সন্ধ্যায় বিকাশ করবেন বলে ফোন কেটে দেন। কিছুক্ষণ পর ওই প্রতারক চক্রের আরেক সদস্য ০১৭২৫৪৬৬৬০৭ নাম্বার থেকে পুনরায় রিতেশ রায়ের মুঠোফোনে সহকারী কমিশনারের পিয়ন পরিচয়ে ফোন আসে। তখন রিতেশ রায়কে বলা হয় ‘আপনি স্যারের ফোন কেনো কেটে দিলেন?’ উত্তরে রিতেশ রায় বলেন- ‘আমি এখন টাকা দিতে পারবো না।’
এরপর রিতেশ রায় বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ীকে বিষয়টি বললে উনারা টাকা না পাঠিয়ে সরাসরি সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাসের সঙ্গে সাক্ষাতে দেখা করা পরামর্শ দেন।
বুধবার (১৪ অক্টোবর) সকালে রিতেশ রায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাসের সাথে দেখা করে বিষয়টি জানালে অবাক হয়ে যান সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাস।
এরপর উত্তম কুমার দাস থানায় গিয়ে উক্ত দুইটি নাম্বারের চাঁদা দাবির বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেন (ডায়েরি নং -৫২৬)।
এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাস বলেন- ‘বিষয়টি শুনে আমি তাৎক্ষণিক থানায় উক্ত নাম্বার দুটি এবং চাঁদা দাবির বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি