বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৫২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
গোলাপগঞ্জে পল্লীবিদ্যুৎ কর্মীর বিদ্যুৎ স্পর্শে মৃত্যু বিয়ানীবাজারে নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডার সালাউদ্দিন গ্রেফতার কানাইঘাটে কারেন্টে তারে লাগে দাদা-নাতির মৃত্যু চুনারুঘাটে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ১২ বছর পর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জানুয়ারিতে জেলা পরিষদ নির্বাচন দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চুনারুঘাটে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে একই পরিবারে ৩ জনের মৃত্যু আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্ম দিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ
শীঘ্রই চালু হতে যাচ্ছে সাটিয়াজুরি রেলস্টেশন

শীঘ্রই চালু হতে যাচ্ছে সাটিয়াজুরি রেলস্টেশন

দর্পণ ডেস্ক : হবিগঞ্জ-১ সংসদীয় আসনের এমপি গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজের প্রচেষ্টায় দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা রেলস্টেশনটি শীঘ্রই চালু হতে যাচ্ছে। এই স্টেশনটি ব্রিটিশ আমলে প্রতিষ্ঠিত সিলেট-আখাউড়া রেলপথের বাহুবল উপজেলায়।
বন্ধ থাকা রেলস্টেশনটি চালু করতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে ইতোমধ্যে ডিও লেটার দিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য স্থানীয় আসনের এমপি গাজী মোহাম্মদ শাহনয়াজ।
কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় সাটিয়াজুরি রেলস্টেশনটি দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ রয়েছে। জনগণের দাবীর প্রেক্ষিতে স্টেশনটি চালু করার জন্য রেল কর্তৃপক্ষের সাথে একাধিকবার বৈঠক করেছি। তারা স্টেশনটি চালু করার জন্য আশ্বাস দিয়েছেন। আমার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আশাকরি অতি শীঘ্রই চালু হবে সাটিয়াজুরী রেলস্টেশন।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান- সাটিয়াজুরি রেলস্টেশনটি জেলার বাহুবল ও চুনারুঘাট উপজেলার মধ্যবর্তীস্থানে অবস্থিত। এই স্টেশনকে কেন্দ্র করে দুটি উপজেলার কমপক্ষে ৫০টি গ্রামের মানুষের ট্রেন যোগাাযোগের একমাত্র মাধ্যম।
সূত্র জানায়, আখাউড়া-সিলেট সেকশনের সাটিয়াজুরী রেল স্টেশনটি ১৯৯৮ সালে বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। তখন এলাকার মানুষ আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ে। এমনকি ঢাকা-সিলেট-চট্টগ্রাম রেল যোগাযোগ অবরোধ করে রাখে বিক্ষুদ্ধ জনতা। আন্দোলনের মুখে সরকার স্টেশনটি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করলেও পরের বছর ১৯৯৯ সালে স্টেশনটি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে এলাকার হাজার হাজার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থায় চরম দুর্ভোগ নেমে আসে। বতর্মানে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে স্টেশনটি বন্ধ থাকার ফলে নষ্ট হচ্ছে সরকারি সম্পদ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রেলস্টেশন বলতে শুধু ব্রিটিশ আমলের সেই পাকা ভবনটিই আছে, তাও আবার পশুপাখির আবাসস্থলে পরিণত হয়েছে। অফিস কক্ষের দরজা-জানালাগুলোও ভেঙে গেছে। ভেতরে থাকালে দেখা যায়, অনেক জিনিস ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। নষ্ট হচ্ছে অনেক মূল্যবান জিনিস।
এলাকাবাসীর দাবী, সাটিয়াজুরী রেলস্টেশনটি চালু করে ট্রেন স্টপিজ দিলে আবারও প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে আসবে। দুর্ভোগ লাঘব হবে জনসাধারণের।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি