রবিবার, ২৫ Jul ২০২১, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
যুক্তরাষ্ট্রে বিয়ানীবাজারের এক যুবকের আকষ্মিক মৃত্যু জকিগঞ্জে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসারের মৃত্যু, বাদ আসর জানাজা দুবাগ স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া স্মরণে ভার্চুয়াল আলোচনা ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন মাইকে ঘোষণা দিয়ে বিয়ানীবাজারের দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধ শতাধিক ফকির আলমগীর আর আমাদের মাঝে নেই গোয়াইনঘাটে র‍্যাবের অভিযানে ৪৮৩ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কঠোর লকডাউনে থাকবে যেসব বিধিনিষেধ বিয়ানীবাজারে করোনায় মারা গেলেন এক স্কুল শিক্ষিকা জকিগঞ্জের শাহগলীতে বিদ্যুৎষ্পষ্ট হয়ে এক কিশোরের মৃত্যু করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও সুবক্তা হাফিজ মৌলানা লুৎফুর রহমান নজিবী
রিপাত হত্যায় ফাঁশি ; আপিল করে খালাস চাইলেন মিন্নি

রিপাত হত্যায় ফাঁশি ; আপিল করে খালাস চাইলেন মিন্নি

দর্পণ ডেস্ক : বরগুনায় আলোচিত রিফাত হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ড থেকে খালাস চেয়েছেন স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) আইনজীবীর মাধ্যমে হাইকোর্টে আপিল করেছেন তিনি।
এর আগে গত রোববার (৪ অক্টোবর) সকালে হাইকোর্টে পৌঁছায় মিন্নিসহ ৬ আসামির ডেথ রেফারেন্স। এদিন খালাস চেয়ে মিন্নির ওকালতনামাও আইনজীবীর কাছে জমা দেন তার বাবা।
সেদিন মিন্নির আইনজীবী ​জেড আই খান পান্না জানান, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আপিল করবেন তারা।
আরও পড়ুন: নিজের বক্তব্যেই ফেঁসে গেছেন মিন্নি
নিয়ম অনুযায়ী, মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য (ডেথ রেফারেন্স) মামলার যাবতীয় কার্যক্রম উচ্চ আদালতে পাঠানো হয়। রায় হাইকোর্টে আসার পর আসামিরা সাত দিনের মধ্যে আপিল আবেদন করতে পারেন। মূলত কোনো আসামির মৃত্যুদণ্ড হলে তা কার্যকরে হাইকোর্টের অনুমোদন লাগে, যা ডেথ রেফারেন্স মামলা হিসেবে পরিচিত। তবে দণ্ডিতরা বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জেল আপিল ও আপিলের সুযোগ পান।
গত ৩০ সেপ্টেম্বর রিফাত হত্যা মামলায় মিন্নিসহ ছয় আসামির মৃত্যুদণ্ড ও ৪ জনকে খালাস দেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান।
ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্তরা হলেন- মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মো. হাসান (১৯) ও আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯)।
এ ছাড়া এ মামলায় চার আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়। তারা হলেন- মো. মুসা (২২), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)।
গত ২০১৯ সালের ২৬ জুন সকালে কিশোর গ্যাং বন্ড বাহিনীর হাতে খুন হন শাহনেওয়াজ রিফাত (রিফাত শরীফ)। সরাসরি হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয় সাব্বির আহমেদ নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজীসহ তাদের অনুসারীরা। সিসি টিভি ফুটেজে দেখা যায়, রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি এ সময় প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন রিফাতকে বাঁচানোর। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে রিফাতকে বরগুনা সদর জেনারেল হাসপাতালে ও পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই দিন বিকালেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন রিফাত।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি