বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
গোলাপগঞ্জে পল্লীবিদ্যুৎ কর্মীর বিদ্যুৎ স্পর্শে মৃত্যু বিয়ানীবাজারে নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডার সালাউদ্দিন গ্রেফতার কানাইঘাটে কারেন্টে তারে লাগে দাদা-নাতির মৃত্যু চুনারুঘাটে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ১২ বছর পর ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জানুয়ারিতে জেলা পরিষদ নির্বাচন দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে চুনারুঘাটে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে একই পরিবারে ৩ জনের মৃত্যু আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্ম দিন পালন করেছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ
যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রীকে গুলি করে বাংলাদেশির আত্মহত্যা

যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রীকে গুলি করে বাংলাদেশির আত্মহত্যা

দর্পণ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের আরিজোনার লভেন শহরে এক বাংলাদেশি দম্পতির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে হত্যা করে আবুল আহসান হাবিব (৫২) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি। খবর এবিসি নিউজের।
কলহের একপর্যায়ে সৈয়দ সোহেলি আক্তার (৪২) নামে ওই গৃহবধূ ৯১১ জরুরি সেবায় ফোন করে তাকে বাঁচানোর জন্য আকুতি জানান।
পুলিশের সঙ্গে কথা বলার সময় তার স্বামী তাকে গুলি করেন। রোববার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টার দিকে ওই ঘটনা ঘটে বলে প্রতিবেশীরা জানান।
স্বামী-স্ত্রী দুজনের বাড়িই বাংলাদেশের মাগুরায়। আবুল আহসান হাবিব নামে ওই ব্যক্তির সঙ্গে তার স্ত্রী সৈয়দ সোহেলি আক্তারের দীর্ঘদিন সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না।
সেখানে একটি পার্লার চালাতেন সোহেলি আর আহসান কাজ করতেন দোকানে। লভেনের বাংলাদেশি কমিউনিটির একাধিক প্রবাসী জানান, স্ত্রীকে নিয়ে আহসান সারাক্ষণ অভিযোগ করতেন। দুই ছেলের দিকে খেয়াল রাখতেন না। কিন্তু স্ত্রী এসব অভিযোগ কখনই পাত্তা দেননি।
রোববার রাতে স্ত্রীর সঙ্গে আহসান হাবিবের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় দুজনের মধ্যে হাতাহাতিও হয়। পরে স্ত্রী পুলিশকে ফোন করে বিষয়টি জানানোর সময় গুলি করেন আহসান হাবিব। স্ত্রীকে হত্যার পর তিনিও আত্মহত্যা করেন।
আরিজোনার সর্ববৃহৎ পারিবারিক সহিংসতার শিকারদের আশ্রয়কেন্দ্রের সিইও মারিয়া মোহন বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেকে চাকরি হারিয়েছেন। এ কারণে পারিবারিক সহিংসতার ঘটনা অনেক বেড়ে গেছে। বাংলাদেশি দম্পতির প্রাণহানির ঘটনা তাই প্রমাণ করে।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি