রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ১১:০৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের ছাত্র আকিব চলে গেছেন না ফেরার দেশে ঐতিহাসিক ৭ মর্চের ভাষণ নতুন প্রজন্মের প্রেরনার উৎস শহিদ আফ্রিদির মেয়েকে বিয়ে করছেন শাহিন আফ্রিদি গোপন ৮ স্ত্রী নক্সাবন্দীর , মামলা তুলে নিতে ৪র্থ স্ত্রীকে হুমকি শাবি ছাত্রীর গোসলের দৃশ্য ধারণের অভিযোগ সোমবার থেকে ব্রিটিশ নাগরিকদের ভ্রমণের জন্য নতুন আইন : অমান্য করলে ৬,৪০০ পাউন্ড জরিমানা সিলেটে ইনজেকশন পুশ করে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী আটক একদিনে কেজিতে পেঁয়াজের দাম বাড়ল ১০ টাকা সিলেটে ঐতিহাসিক ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা এই প্রথম ৭ মার্চ পালন : স্বাধীনতায় ভূমিকা রাখা সব জাতীয় নেতাকে প্রাপ্য সম্মান দিতে চায় বিএনপি
হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে ইতিহাস ঐতিহ্যের অংশ ছাওয়াল পীর

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে ইতিহাস ঐতিহ্যের অংশ ছাওয়াল পীর

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ দাউদনগরের বাসিন্দা সৈয়দ বংশের অন্যতম উত্তরসুরী মোতাওয়ালী পীরজাদা সৈয়দ হামদু মিয়া জানান- বন্দেগী শাহ সৈয়দ দাউদ (রহ.) একজন বড় দরবেশ ছিলেন।

তিনি চুনারুঘাটের মুড়ারবন্দ দরবার শরীফে সিপাহসালার সৈয়দ নাসির উদ্দিন (রহ.) এর আস্তানায় এবাদত করতেন। তিনি তরফ রাজ্যের ঘরগাঁও বাস করতেন। পরে তিনি তরফ রাজ্যের ঘরগাঁও থেকে দাউদনগর পরগণা খারিজ করে আনেন। সৈয়দ সয়েফ মিন্নত উদ্দিন (র:)এর প্রপৌত্র বন্দেগী শাহ সৈয়দ দাউদের নামানুসারে শায়েস্তাগঞ্জ রেল স্টেশন সংলগ্ন তাঁর বাসস্থানের নামকরণ করা হয়েছে দাউদনগর। পরে তার নাম অনুসারে দাউদনগর বাজার প্রতিষ্ঠত হয়। তার সংলগ্ন গ্রামটি (বর্তমানে পৌরসভার অন্তর্ভ‚ক্ত) আজও দাউদনগর নামে পরিচিত।

বন্দেগী শাহ সৈয়দ দাউদ (রহ.) এর দুই পুত্র ছিলেন। একজন হলেন বন্দেগী শাহ সৈয়দ মহিব উল্লাহ (রহ.) ও অপরজন হলেন শাহ সৈয়দ হাছান উল্লাহ (রহ.) ওরফে সৈয়দ নাছির প্রকাশ ছাওয়াল পীর বা জিন্দা শিশু পীর। তারা দাউদনগরের বিখ্যাত দরবেশ ছিলেন। বন্দেগী শাহ সৈয়দ মহিব উল্লাহ (রহ.) মুড়ারবন্দ দরবার শরীফ এবং দাউদনগরে আপন নিবাসে এবাদত করতেন।

দাউদনগর নিবাসে বড় একটি খেলার মাঠ ছিল। ওই খেলার মাঠে বন্দেগী শাহ সৈয়দ মহিব উল্লাহ (রহ.) প্রায় সময় বিভিন্ন পীর অলিদের নিয়ে মাঠে খেলা করতেন। একদিন খেলার সময় তার ছোট ভাই শাহ সৈয়দ হাছান উল্লাহ (রহ.) ওরফে সৈয়দ নাছির মাঠে বসা ছিলেন। ওই সময় এক হিন্দু ভক্ত বন্দেগী শাহ সৈয়দ মহিব উল্লাহ (রহ.) এর জন্য মানত করে এক ছড়া পাকা কলা গামছায় ভাল করে মুড়িয়ে এবং গাভির দুধ নিয়ে আসছিল পীরের বাড়িতে। খেলার মাঠে তখন কিছু ছেলে দ্বারাগুটি নিয়ে খেলছিল। সে সময় শাহ সৈয়দ হাছান উল্লাহ (রহ.) ওরফে সৈয়দ নাছির প্রকাশ জিন্দা শিশু পীর খেলায় মগ্ন ছিলেন।

তিনি অবোধ মন নিয়ে হিন্দু ভক্তকে জিজ্ঞেস করেন তোমার কাঁধে কি ? তখন ওই হিন্দু ভক্ত জবাব দেন আমার কাছে পাকা কলা এবং গাভির দুধ রয়েছে। তখন তিনি তাকে বললেন আমাকে একটি পাকা কলা দাওনা? হিন্দু ভক্ত শাহ সৈয়দ মহিব উল্লাহ (রহ.) এর ছোট ভাই শাহ সৈয়দ হাছান উল্লাহ (রহ.) ওরফে সৈয়দ নাছির প্রকাশ জিন্দা শিশু পীরকে চিনতে পারেনি। তাই সে তার প্রতি বিরক্ত হয়ে অবজ্ঞার সুরে কটু কথা বলে। কিন্তু শাহ সৈয়দ হাছান উল্লাহ (রহ.) ওরফে সৈয়দ মোটেও রাগান্বিত হন নি।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ক্রিয়েটিভ জোন আইটি