শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:১২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
সিলেটে পরিবহণ ধর্মঘটে বিপাকে সাধারণ মানুষ

সিলেটে পরিবহণ ধর্মঘটে বিপাকে সাধারণ মানুষ

দর্পণ ডেস্ক : বৃহত্তর সিলেট পাথর সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ’র ডাকা ৭২ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট আজ মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে শুরু হয়েছে। সিলেটের সকল পাথর কোয়ারি খুলে দেওয়ার দাবিতে তাদের ডাকা ধর্মঘটের পাশাপাশি সিএনজি অটোরিকশায় গ্রিল সংযোজনে পুলিশের নির্দেশনা প্রত্যাহারসহ ৬ দফা দাবিতে সিলেটে সোমবার থেকে ধর্মঘট পালন করছে অটোরিকশা শ্রমিকরা। পৃথক দাবীতে একসাথে চলা পরিবহন ধর্মঘটের ফলে কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সিলেট। এতে বিপাকে পড়েছেন সিলেটবাসী।

জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে ধর্মঘট হলেও এর আগ থেকেই সিলেটের বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান নেন পরিবহন ও পাথর সংশ্লিষ্ট শ্রমিকরা। তারা কোনো অবস্থাতেই কোনো ধরনের রাস্তায় গাড়ি চলতে দিবেন না বলে জানিয়েছেন। সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের তেমুখি, সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের চন্ডিপুল ও তেলিবাজারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট ও রাস্তায় পিকেটিং করছেন শ্রমিকরা।

বিভিন্ন রাস্তা ঘুরে দেখা গেছে, রিকশা ছাড়া চলছে না কোনো ধরনের যানবাহন। পায়ে হেটে অনেকেই যাচ্ছেন কর্মস্থলে। পথে পথে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন মানুষ। এছাড়া রিকশার ভাড়াও বেড়েছে কয়েকগুন।

নগরীর শিবগঞ্জের এলাকার তামান্না জানান, জিন্দাবাজার আসার জন্য অনেক্ষণ দাঁড়িয়েও রিকশা পাইনি। তাই হেঁটে হেঁটে শিবগঞ্জ থেকে রওয়ানা দিলাম।

দক্ষিণ সুরমাএলাকার লিবন দাস বলেন, ‘অফিসের জন্য সকালে বের হয়ে কোনো ধরণের যানবাহন পাইনি। পরে রিক্শায় নিয়মিত ভাড়ার চেয়ে তিনগুন বেশি ভাড়া দিয়ে চৌহাট্টা আসলাম।’

এদিকে, সিলেটে ধর্মঘটের সুযোগে যাত্রীদের কাছে থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন পাঠাও উবার চালকরা। রাইড শেয়ারভিত্তিক অ্যাপস কোম্পানি পাঠাও-উবারের চালকরা তাদের অ্যাপসের চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া ছাড়া যাত্রী সেবা দিচ্ছেন না এমন অভিযোগ করেছেন একাধিক যাত্রী।

সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ ও সিলেট জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি গোলাম হাদী ছয়ফুল বলেন, ‘জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের ডাকে সোমবার বিকেলে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কনফারেন্স হলে আমাদের সঙ্গে একটি জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তবে কোনো সমাধান না আসায় আমরা আমাদের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছি। মঙ্গলবার ভোর ৬ টা থেকে শুক্রবার ভোর ৬টা পর্যন্ত টানা তিনদিন পুরো সিলেট বিভাগে সকল ধরনের পরিবহন ধর্মঘট চলবে। আমরা সকাল থেকেই রাস্তায় নেমে পড়বো আমাদের নায্য দাবি আদায়ে।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ওরাকল আইটি