শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের টিলা ধসে ৪ নারী শ্রমিকের মৃত্যু বিশ্বনাথ থানা পুলিশ কর্তৃক মোবাইল কোট পরিচালনা করে এক মাদক বিক্রেতার জেল জরিমানা বিয়ানীবাজারে ঝুলন্ত শিশুর ৪ দিন পর ঝুলন্ত কিশোরের লাশ উদ্ধার শিশু ইমনের মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল তৈরি ; হত্যা না আত্মহত্যা জানতে চায় স্বজন জকিগঞ্জে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক বিজিবি সদস্য নিহত সড়ক দুর্ঘটনায় জালালপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আওলাদ হোসেন নিহত দুবাগের শিশু ইমনের ঝুলন্ত লাশ মুড়িয়ায় পাওয়া গেছে কুলাঙ্গার ওয়াহিদকে গ্রেফতার করেছে জকিগঞ্জ থানা পুলিশ সিএনজি থেকে লাফ মেরে মৃত্যু বরণকারী স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন হয়নি বিয়ানীবাজারের মাথিউরায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
মায়ের লাশ দেখে সহ্য করতে না পেরে দুই মেয়ের মৃত্যু

মায়ের লাশ দেখে সহ্য করতে না পেরে দুই মেয়ের মৃত্যু

দর্পণ ডেস্ক : মায়ের মৃত্যুর খবর শুনেই স্বামীর বাড়ি থেকে দেখতে আসেন ছয় মেয়ে। মায়ের লাশ দেখেই আহাজারি শুরু করেন সবাই। চারপাশ যেন ভারি হতে থাকে। এ সময় মায়ের মৃত্যুশোকে অচেতন হয়ে মারা যান বড় মেয়ে স্বরজনি বালা (৫০) ও ছোট মেয়ে চৈতী রানী (৩০)।

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার চন্দনবাড়ি ইউনিয়নের খলিফাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই নারীর নাম পঞ্চমী বেওয়া। তিনি ৯০ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত জটিলতা নিয়ে মঙ্গলবার মারা যান। তিনি ছয় মেয়ে ও দুই ছেলের মা ছিলেন। তার বড় মেয়ে স্বরজনি বালা একই উপজেলার সাকোয়া ইউনিয়নের ডাঙ্গাপাড়া এলাকার সুশীল চন্দ্র রায়ের স্ত্রী। আর ছোট মেয়ে চৈতী রানী ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ফারাবাড়ি এলাকার পলাশ চন্দ্র রায়ের স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মায়ের মৃত্যুর খবর শুনেই সকালে চলে আসেন ছয় মেয়ে। তারা দিনভর আহাজারি করেন। কেউ কোনো খাবার মুখেই দেননি সারাদিন। সন্ধ্যার খানিকটা আগে স্বামীর বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নেয়ার সময় বুকে ব্যথা অনুভব করে অচেতন হয়ে পড়েন চৈতী রানী। এ সময় মাইক্রোবাসে ছোট বোনকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাচ্ছিলেন বড় বোন। পথে তিনিও অচেতন হয়ে মারা যান।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) রাকিবুল আলম বলেন, দুই বোনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে।

পরিবারের অনেকেই বলছেন, চৈতী রানী ও স্বরজনি বালা হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন। মায়ের মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে হার্টের সমস্যা থেকেই তারা মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ওরাকল আইটি