শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
আমাদের সিলেট দর্পণ  ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন news@sylhetdorpon.com এই ই-মেইলে ।
শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের টিলা ধসে ৪ নারী শ্রমিকের মৃত্যু বিশ্বনাথ থানা পুলিশ কর্তৃক মোবাইল কোট পরিচালনা করে এক মাদক বিক্রেতার জেল জরিমানা বিয়ানীবাজারে ঝুলন্ত শিশুর ৪ দিন পর ঝুলন্ত কিশোরের লাশ উদ্ধার শিশু ইমনের মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল তৈরি ; হত্যা না আত্মহত্যা জানতে চায় স্বজন জকিগঞ্জে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক বিজিবি সদস্য নিহত সড়ক দুর্ঘটনায় জালালপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আওলাদ হোসেন নিহত দুবাগের শিশু ইমনের ঝুলন্ত লাশ মুড়িয়ায় পাওয়া গেছে কুলাঙ্গার ওয়াহিদকে গ্রেফতার করেছে জকিগঞ্জ থানা পুলিশ সিএনজি থেকে লাফ মেরে মৃত্যু বরণকারী স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন হয়নি বিয়ানীবাজারের মাথিউরায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
ফলাফলের আগে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর মৃত্যু ; ফলাফল স্থগিত

ফলাফলের আগে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর মৃত্যু ; ফলাফল স্থগিত

দর্পণ ডেস্ক : খুলনার চালনা পৌরসভার বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী আবুল খয়ের খান আজ সোমবার বিকেলে ভোটগ্রহণ চলাকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ফলে সেখানে মেয়র পদের নির্বাচনি ফলাফল স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর।

তবে আবুল খয়ের খানের মৃত্যুতে নির্বাচনি ফলাফল স্থগিত করা হলেও ওই পদে পুনরায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কিনা তা নিয়ে এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। এ বিষয়ে ইসির পক্ষ থেকে দুই রকম তথ্য পাওয়া গেছে। ফলে পুনরায় নির্বাচনের সিদ্ধান্ত ঝুলে রয়েছে।

চালনা পৌরসভায় ভোটের বিষয়ে আজ সন্ধ্যায় ঢাকায় নির্বাচন ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইসির জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর বলেন, ‘আমরা প্রথমে খবর পেয়েছি বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটের দিকে। আবুল খয়ের খানের প্রধান নির্বাচনি এজেন্ট আব্দুল মান্নান খান রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিতভাবে জানিয়েছেন, বিএনপিপ্রার্থী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। সেখানে লেখা ছিল, ৩টা ৩২ মিনিটে তিনি মারা গেছেন। তারপর আমরা হাসপাতাল থেকে মেডিকেল সার্টিফিকেট সংগ্রহ করি। সেখানে লেখা ছিল, ৩টা ৫০ মিনিটে তিনি মারা গেছেন। দুই স্থানে দুই রকম তথ্য। এটা কমিশনে উপস্থাপন করা হবে। কমিশন আগামীকাল যে সিদ্ধান্ত দেবে, তাই হবে।’

ইসি সচিব আরো বলেন, ‘তবে প্রার্থী মারা যাওয়ার ঘটনায় আপাতত মেয়র পদের নির্বাচনি ফলাফল স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে নির্বাচনি আইন বলে, ভোটের আগে যদি কোনো প্রার্থী মারা যান, তাহলে ওই পদের নির্বাচনটা বাতিল হয়ে যাবে। নতুন করে আবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

ইসি সচিবের এই বক্তব্যের পর প্রার্থী মারা যাওয়ার ঘটনায় মেয়র পদের ভোট বাতিল হয়ে যাবে কিনা জানতে চেয়ে দুজন নির্বাচন কমিশনারের (ইসি) সঙ্গে কথা হয়। তাঁরা দুজনই একই কথা বলেন। তাঁদের ভেতরে ইসি রফিকুল ইসলাম খুলনার ওই নির্বাচনের তদারকির দায়িত্বে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘ভোট গ্রহণের আগে যদি কোনো প্রার্থী মারা যান, তাহলে ওই নির্বাচন স্থগিত করার কথা আইনে বলা আছে। কিন্তু এখানে তো ওই প্রার্থী একটি হলেও ভোট পেয়েছেন। তার মানে, ভোট শুরুর পর তিনি মারা গেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ সিলেট দর্পণ ।

কারিগরি সহায়তায়ঃ-ওরাকল আইটি